খেলাফত মজলিসের উদ্যোগে “আন্তর্জাতিক পানি নীতি ও বাংলাদেশের নদনদী” শীর্ষক...

পানির অধিকার আদায়ে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবেঃ ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ

বর্তমান নতজানু সরকার দ্বারা পানির অধিকার আদায় করা সম্ভব নয়: মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক

ভারতের বাঁধের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে: নজরুল ইসলাম খান

ঢাকা, ২৯ আগস্ট ২০১৫: বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড....

জ্বালানী গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ

ঢাকা, ২৭ আগষ্ট ২০১৫: জ্বালানী গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে খেলাফত মজলিসের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, এই মুহূর্তে দেশে জ্বালানী গ্যাসের দাম ২৬.২৯ শতাংশ ও বিদ্যুতের দাম ২.৯৩ শতাংশ বৃদ্ধি সম্পূর্ণ অন্যায় ও অযৌক্তি।...

সিলেট মহানগরীর সিনিয়র সহসভাপতি ইঞ্জিনিয়ার রফিকুল হকের ইন্তিকালে শোক

১৭ আগস্ট ২০১৫ঃ খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য ও সিলেট মহানগরী শাখার সিনিয়র সহসভাপতি বিশিষ্ট সমাজ সেবক ইঞ্জিনিয়ার রফিকুল হক ইন্তিকাল করেছেন( ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। গত রাত ১ঃ ১৫ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিলেটের মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।...

শাসকদের মধ্যে আল্লাহর ভয় না থাকলে সুশাসন কায়েম করা সম্ভব নয়

ঢাকা : ১৬ আগস্ট ২০১৫: খেলাফত মজলিস মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, শাসকদের মধ্যে আল্লাহর ভয় না থাকলে সুশাসন কায়েম করা সম্ভব নয়। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে এবং স্বাধীনতার পর আমাদেও দেশে অনেক পরীক্ষা নিরীক্ষা হয়েছে, অনেক তন্ত্র-মন্ত্র দ্বারা মানুষ মুক্তির পথ খুঁজেছে কিন্তু সবাই ব্যর্থ হয়েছে।...

জাতি আজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে

খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী বলেছেন, সামাজিক অবক্ষয়ের কারণে জাতি আজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। মানুষের জান মাল ইজ্জতের কোন গ্যারান্টি নেই। নারীর ইজ্জত আজ ভূলুন্ঠিত। পৈচাষিক কায়দায় শিশুদেরকে নির্যাতন- হত্যা আইয়্যামে জাহিলিয়াতকেও হার মানাচ্ছে। দ্বীন- ধর্মের বিরুদ্ধে হীন...

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম


মানুষ আল্লাহর খলিফা ও বান্দা । খেলাফত ও উবুদিয়্যাতের দায়িত্ব যথাযথভাবে আঞ্জাম দেয়ার উপরই মানুষের দুনিয়ার সামগ্রিক কল্যাণ এবং আখেরাতের মুক্তি ও শান্তি নির্ভরশীল।

ইসলাম মানুষের জন্য মনোনীত দ্বীন ও সর্বোত্তম জীবন ব্যবস্থা। ইবলিসী চক্রান্তে সৃষ্ট শোষণ-নির্যাতন, নৈরাজ্য, অনৈক্য-বিভেদ, অন্যায়-অবিচার-অনাচার, যুদ্ধ-সংঘাতে পরিপূর্ণ বিপর্যস্ত পৃথিবীর হতাশাগ্রস্ত মানুষের একমাত্র মুক্তির পথ ইসলাম। সমাজের সর্বস্তরে ইসলামের পূর্ণ প্রতিষ্ঠাই শান্তি ও অগ্রগতি, সুবিচার ও সাম্যের নিশ্চয়তা দিতে পারে।

বর্তমানে উলামা মাশায়েখ ও দ্বীনদার শ্রেণীর মাধ্যমে ইসলামের বিভিন্ন পরিমন্ডলে ইসলামের বাস্তবরূপ তথা খেলাফত ব্যবস্থা কায়েম নেই দীর্ঘদিন ধরে। অথচ মানবতার বিশেষভাবে মুসলিম বিশ্বের মুক্তি, সমৃদ্ধি, সম্মান ও দায়িত্ব গোটা মুসলিম জাতির, বিশেষভাবে উলামা-মাশায়েখ, দ্বীনদার বুদ্ধিজীবী ও রাজনীতিকদের।

বাংলাদেশের ক্ষেত্রে এ সত্য সমভাবে প্রযোজ্য। এখানকার সামাজিক বৈষম্য, অর্থনৈতিক শোষণ, রাজনৈতিক নিপীড়ন, হানাহানি, সাংস্কৃতিক নৈরাজ্য ও দেউলিয়াপনা এবং বৈদেশিক আধিপত্যের অবসানে গোটা সমাজ ব্যবস্থাকে ইসলামের আলোকে পুনর্গঠিত করতে হবে। দেশের পনের কোটি মানুষের কল্যাণ ও সমৃদ্ধির জন্য ইসলামী আদর্শের ভিত্তিতে সমাজের বিপ্লবাত্মক পরিবর্তন তথা একটি ইসলামী বিপ্লব প্রয়োজন। প্রয়োন খেলাফত ব্যবস্থাকে এখানে পুনরুজ্জীবিত করে দেশকে সত্যিকার অর্থে একটি সার্বজনীন কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করা। এ শুধু পার্থিব প্রয়োজনেই নয় বরং আখেরাতের মুক্তির জন্যো অপরিহার্য।

বাংলার জমীনে আল্লাহ্র খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এ দেশের ইসলামী আন্দোলনের ক্ষেত্রে এক নবতর সমন্বয়ধর্মী ও গণভিত্তিক ঐতিহ্য-চেতনা সমৃদ্ধ আপোষহীন নির্ভেজাল ইসলামী আন্দোলন গড়ে তোলার প্রয়োজনে ১৯৮৯ সালের ৮ই ডিসেম্বর খেলাফত মজলিস আত্মপ্রকাশ করেছে।